জাতীয় কংগ্রেসের বৃদ্ধির পথে বাংলা ও বাঙ্গালির অবদানঃ

পার্থ মুখোপাধ্যায়

দ্বিতীয় বছরেই জাতীয় কংগ্রেসের অধিবেশন হয় তৎকালীন দেশের রাজধানী অবিভক্ত বাংলার কলকাতা শহরে। এরপর ১৮৮৯ সালে তৎকালীন বোম্বাই শহরে কংগ্রেসের ৫ম অধিবেশনে এক চমকপ্রদ ঘটনা ঘটে। শুরুর চার বছর বাদেই চার জন মহিলা বাৎসরিক অধিবেশনে ডেলিগেট নির্বাচিত হয়ে অংশগ্রহণ করেন, যা সেই যুগে ছিলো অকল্পনীয়। বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য যে এই প্রথম ডেলিগেট নির্বাচিত হওয়া চার জনের মধ্যে দজন মহিলা ডেলিগেট ছিলেন বাঙ্গালি, একজন দেশের প্রথম মহিলা চিকিৎসক ডঃ কাদম্বিনী বসু এবং অপর জন স্বর্ণকুমারি দেবী, যিনি সম্পর্কে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ভগ্নী। ১৮৮৯ এর যুগান্তকারী মহিলা ডেলিগেটদের অংশগ্রহণের পরে ১৮৯০ এর ৬ষ্ঠ বার্ষিক অধিবেশনও কলকাতায় অনুষ্ঠিত হয় ফিরোজ শা মেহতার সভাপতিত্বে। এর পরবর্তীকালে এলাহাবাদে ১৮৯২ সালের ৮ম রাষ্ট্রীয় অধিবেশনে পুনরায় সভাপতিত্ব করেন বাঙ্গালি উমেশ চন্দ্র ব্যানার্জি। এরপর ১৮৯৫ সালের পুনায় অনুষ্ঠিত অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন আর এক বিখ্যাত বাঙ্গালি সুরেন্দ্রনাথ ব্যানার্জি।এর পরেরবজ বছরেই ১৮৯৬ সালে দ্বাদশ অধিবেশন পুনরায় অনুষ্ঠিত হয় কলকাতায়, সভাপতিত্ব করেন রহিমতুল্লা মহম্মদ সায়ানি।

কলকাতায় অনুষ্ঠিত ১৮৯৬ সালের এই অধিবেশন একদিকে ঐতিহাসিক, কেননা এই অধিবেশনের মঞ্চেই প্রথমবার বন্দে মাতরম গানটি গাওয়া হয়।
একদিকে যেমন রাষ্ট্রীয় ক্ষেত্রে জাতীয় কংগ্রেসের কলেবর বাড়তে থাকে, অপরদিকে অবিভক্ত বাংলা এবং বাঙ্গালিদের গুরুত্বও বা,ড়তে থাকে। ১৮৯৮ সালে মাদ্রাজ অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন আনন্দ মোহন বসু এবং পরের বছর ১৮৯৯ এ লখ্নৌ অধিবেশনে আর এক বাঙ্গালি রমেচ চন্দ্র দত্ত। ১৯০১ সালে পুনরায় কলকাতায় বাৎসরিক অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয় দিনশ্ ওয়াচার সভাপতিত্বে। পরের বছর আহমেদাবাদ অধিবেশনে সভাপতি হন পুনরায় সুরেন্দ্রনাথ ব্যানার্জি এবং পরের বছর ১৯০৩ এ মাদ্রাজে আর এক বিশিষ্ট বাঙ্গালি লাল মোহন ঘোষ। এরপর ১৯০৬ সালে পুনরায় কলকাতায় অধিবেশন বসে দাদাভাই নওরোজির সভাপতিত্বে, যেটিরও ঐতিহাসিক গুরুত্ব রয়েছে কেননা প্রথমবার স্বরাজ শব্দটি এই কলকাতার অধিবেশনেই প্রথমবারের জন্য ধ্বনিত হয়েছিলো। ক্রমান্বয়ে বাঙ্গালিদের গুরুত্ব বাড়তে থাকে যার প্রমান ১৯০৭ এবং ১৯০৮ সালে যথাক্রমে সুরাট ও মাদ্রাজের অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন প্রখ্যাত বাঙ্গালি আইনজীবী রাসবিহারী ঘোষ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.