মিল্টন রশিদের নেতৃত্বে শান্তিনিকেতনে কংগ্রেস

মুকুল বসাক;১৬ই এপ্রিল, বোলপুর:

নববর্ষের দিনই গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠে রবিতীর্থ শান্তিনিকেতনে। জানা গিয়েছে এক আদিবাসী তরুণী বন্ধুর সাথে বৃহস্পতিবার বিকালে চড়কের মেলায় গিয়েছিলো, মেলা দেখে ফেরার সময় তরুণীর বন্ধুকে মারধর করে পাঁচজন দুস্কৃতী ওই তরুণীকে তুলে নিয়ে গিয়ে নদীর চর এলাকায় গণধর্ষণ করে।

আজ বীরভূম জেলা কংগ্রেস সভাপতি ও হাঁসন কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক মিলটন রশিদের নেতৃত্বে বীরভূম কংগ্রেসের একটি প্রতিনিধি দল ওই নির্যাতিতার বাড়ীতে পরিবারের সাথে দেখা করতে যায়। সেখানে নির্যাতিতার পিতার সাথে দেখা করার পর মিলটন সাহেব বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে গিয়ে ওই তরুণীর মায়ের কাছ থেকে নির্যাতিতার স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নেন এবং ফোনে পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি ও লোকসভার বিরোধী দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীর সাথে নির্যাতিতার মায়ের কথোপকথন করান। নির্যাতিতার মা জানান ফোনে অধীর বাবু সমস্ত রকম ভাবে তাদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।

সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মিলটন রশিদ জানান, “রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা দিদির দুষ্টু ভাইদের জন্য ভেঙে পড়েছে এবং দিদি শুধুমাত্র নবান্ন বাঁচানোর জন্য এদের কন্ট্রোল করতে পারছেন না। পুলিশ বলছে অপরাধীদের চিহ্নিতকরণ করা হয়েছে অথচ কাউকে গ্রেফতার করা হলো না কেন? অপরাধীরা সেই দিদির দুষ্টু ভাইয়েরা নয় তো? আমি একজন আইনজীবী হিসাবে আমার এই মেয়েটির পাশে থেকে সমস্ত রকম আইনি সাহায্য থেকে শুরু করে সবরকম সাহায্য করবো এই পরিবারকে। এছাড়াও ভারতের লোকসভার বিরোধী দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীও আমাকে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি এই ঘটনার সঠিক বিচার পাওয়ার জন্য সবরকম সাহায্য করবেন।”

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.