স্মরণে গফফর চৌধুরী

—দিলীপ চক্রবর্তীঃ

২১ শে ফেব্রুয়ারি এখন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস । সারা বিশ্বে যত বাঙ্গালী আছেন তাদের অধিকাংশই ” আমার ভায়ের রক্তে রাঙ্গানো ২১শে ফেব্রুয়ারী ” – এই গানটি শুনেছেন । আর এই গানটির রচয়িতা ছিলেন আবদুল গফফর চৌধুরী । তিনি কিন্তু প্রতিষ্ঠিত কবি বা গীতিকার ছিলেন না । ছিলেন সাংবাদিক , কিন্তু ১৯৫২ তে ঢাকায় ভাষা শহিদদের স্মৃতিতে তাঁর এই কবিতা বিখ্যাত হয় । সুরকার আলতাফ মাহমুদ একে সুরারোপিত করেছিলেন । ১৯৭১ সালে ঢাকায় রাজাকার বাহিনী সুরকার আলতাফ মাহমুদকে হত্যা করে । গফফর চৌধুরী কোনও প্রকারে রক্ষা পান এবং কলকাতায় শরণার্থী হিসাবে আসেন । ঐ সময়ে তাঁর সঙ্গে যুব আন্দোলনে আমার সহযোদ্ধা প্রয়াত: কৃষ্ণা সরকার প্রথম তাঁর সঙ্গে আমার পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন , এই পরিচয় ক্রমশই সখ্যে রূপান্তরিত হয় । ঐ সময়ে আওয়ামি লীগের পত্রিকার সঙ্গে তিনি যুক্ত হন , সময় সময়ে কালান্তর এবং সপ্তাহ দপ্তরে কিংবা পেট্রিয়ট পত্রিকা দপ্তরে আসতেন । আমার লেখা “একাত্তরের রাতদিন ” গ্রন্থে এর উল্লেখ আছে ।

বাংলাদেশ স্বাধীন হলে তিনি ঢাকা থেকে কাজ শুরু করেন । দৈনিক সংবাদ , দৈনিক ইত্তেফাক , দৈনিক পূর্বদেশ , দৈনিক জনপদ এ কাজ করেন । বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর তিনি লন্ডনেই স্থায়ী বসবাস শুরু করেন , তাঁর বিখ্যাত নাটকের বই পলাশী থেকে ধানমন্ডী । গফফর ভাইয়ের সঙ্গে আমার যোগাযোগ ছিল । কলকাতা এলে তাঁর সঙ্গে আড্ডা হতো আবার ঢাকায় থাকাকালীন সময়ে গেলেও আড্ডা হতো ।

(‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো ২১ শে ফেব্রুয়ারি ‘র অমর স্রষ্টা আবদুল গফফার চৌধুরীর প্রয়াণে আন্দোলন ডট ইনের জন্য কলম ধরলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক তথা ‘সপ্তাহ’ পত্রিকার সম্পাদক দিলীপ চক্রবর্তী।)

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.