কংগ্রেসের ‘চিন্তন শিবির’ নিয়ে বিরোধী শিবিরের মুখপত্রে যখন পাতা ভর্তি আলোচনা হচ্ছে, তার মানে কংগ্রেস মানুষের মাঝে সঠিক পথেই আছে।

কংগ্রেসের ভালো-মন্দ নিয়ে কংগ্রেসের বাইরে থাকা দল-গোষ্ঠীরা উদ্বিগ্ন হচ্ছে মানে তাঁরা কংগ্রেসের ভালোই চান এটা ধরে নিয়েই তাঁদের উদ্দেশে বলা যেতে পারে যে, তাহলে সরাসরি কংগ্রেসের নেতৃত্বে, কংগ্রেসের নীতি মেনে কংগ্রেসে এসে কাজ করুন।

উদয়পুরে অনুষ্ঠিত কংগ্রেসের ‘নব সংকল্প চিন্তন শিবির’-কে কেন্দ্র করে কংগ্রেসের ভিতরেও যেমন নব উদ্যম লক্ষ করা গেছে, পাশাপাশি দেশের মানুষও নতুন আশায় বুক বাঁধছেন। কর্মসংস্থানের লক্ষে, বিভাজনের রাজনীতির বিরুদ্ধে, দেশ ও সংবিধান বাঁচানোর শপথ নিয়ে, সামাজিক ন্যায় প্রতিষ্ঠার দাবিতে কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী দীর্ঘ পদযাত্রা চলবে, স্বয়ং রাহুল গান্ধী সেই পদযাত্রায় প্রতি মুহূর্তে পা মেলাবেন। এতে কি কোথাও বিজেপি – আ.এস.এস মিত্রদের কপালে ভাঁজ পড়ল?

বিজেপি-কে হারাতে হবে, পাশাপাশি আর এস এস – সংঘ পরিবারের ভয়ংকর দর্শনের বিরুদ্ধেও চলবে লড়াই। কংগ্রেসের দিশা খুব স্পষ্ট। বিজেপি বাদ দিয়ে সংঘ পরিবার নয়, সংঘ পরিবার বাদ দিয়ে বিজেপি অকল্পনীয়। একটার বিরুদ্ধে লড়ার কথা বলব, আর একটার বিরুদ্ধে রা’ কাটব না; এতো দ্বিচারিতা। এই দ্বিচারিতা থেকে বেড়িয়ে আসতে পারলেই বিজেপি র বিরুদ্ধে কংগ্রেসের লড়াইটা তাদের কাছে বোধগম্য হবে,যারা আজ কংগ্রেসের বিজেপি বিরোধিতা নিয়ে চিন্তিত!

অতি সম্প্রতি লক্ষ করা গেলো যে গোয়ার বিধানসভা নির্বাচনে ভোট কাটাকুটির খেলা খেলে বিজেপিকে জিতিয়ে দিলো নিজের নাক কেটে পরের যাত্রাভঙ্গকারীরা। মণিপুর, ত্রিপুরা, মেঘালয়, অসমের মতো রাজ্যে যেখানে বিজেপি র সঙ্গে মুখোমুখি লড়াই কংগ্রেসের, সেই রাজ্যগুলিতে কংগ্রেসকে ক্ষতিগ্রস্ত করে বিজেপি র হাত শক্ত করছে কারা?

বিজেপিকে হারাতে হবে কিন্তু পাশাপাশি কে জিতবে? এটাও বড় প্রশ্ন। কারণ বিজেপি মানে গণতন্ত্রের হত্যাকারী, সংবিধানের হত্যাকারী, রাজনৈতিক ও সামাজিক বহুত্ববাদী সংস্কৃতির হত্যাকারী একটা শক্তি। যে শক্তির আমলে কর্মসংস্থান নেই, নারীদের সুরক্ষা নেই সামাজিক ন্যায় নেই। এই সব বদগুণ যদি পাশাপাশি অন্য রাজনৈতিক দলেরও থাকে, তবে তার বিরুদ্ধেও কংগ্রেসের লড়াই ছিলো-আছে-থাকবে। মুখে বিজেপি বিরোধিতার কথা বলে বিজেপি ও আর এস এসের নীতি অনুসরণ করা এবং নির্বাচনের সময় বিজেপি কে অক্সিজেন যারা দিয়ে চলে কংগ্রেস তাদের কাছ থেকে বিজেপি বিরোধিতা শিখবে না। কংগ্রেস একমাত্র এই দেশ ও দেশের মানুষের কাছে দায়বদ্ধ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.