অমিত শাহকে শানিত জবাব প্রিয়াঙ্কা গান্ধির

শুভাশিস মজুমদারের বিশেষ প্রতিবেদন,৮,ই অগাস্ট:

লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধি ও বেকারত্বের ইস্যুতে শুক্রবার দিল্লিতে এবং সারা দেশে কংগ্রেসের তীব্র আন্দোলনে বিজেপি নেতৃত্বের দিশাহারা অবস্থা। তাঁদের কাছে এর কোন জবাব নেই, তাই যথারীতি ধর্মের ভাবাবেগ তুলে সাধারণ মানুষের দৃষ্টি ঘোরাতে চেয়েছেন। কংগ্রেসের কালো পোশাকের প্রতিবাদকে কেন্দ্র করে অমিত শাহের রাম মন্দিরের বিষয়কে যুক্ত করার অপচেষ্টা করার পাল্টা জবাব দিয়েছেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধি। রামায়ণের থেকে উদ্ধৃতি দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর তীব্র সমালোচনা করেছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধি।

যদিও কংগ্রেসের আন্দোলন ছিল মুদ্রাস্ফীতি ও বেকারত্বের ইস্যুতে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন যে কংগ্রেস এদিন কালো পোশাক পরে প্রতিবাদ করতে বেছে নিয়েছে কারণ তারা এর মাধ্যমে বার্তা দিতে চায় যে তারা রাম জন্মভূমির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের বিরোধিতা করে এবং তারা তুষ্টির নীতিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চায়। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের বক্তব্যের পর এবার প্রিয়াঙ্কা গান্ধি রামায়ণের থেকে উদ্ধৃতি টুইট করে লিখেছেন-

भये प्रकट कृपाला दीन दयाला

कौशिल्या हितकारी

हर्षित महतारी, मुनि मन हारी

अद्भुत रूप निहारी

करुणा सुख सागर, सब गुन आगर

जेहि गावहिं श्रुति संतासो मम हित लागी,

जन अनुरागीप्रकट भये श्रीकंता

প্রিয়াঙ্কা আরও লিখেছেন, দেশজুড়ে গরিব-মধ্যবিত্তের ওপর মূল্যবৃদ্ধির আঘাতের বিরুদ্ধে লড়াই… জনহিতৈষী ভগবান রামের দেখানো পথ। যিনি মূল্যস্ফীতি বাড়িয়ে দুর্বলকে ব্যথা দেন, তিনি ভগবান রামের বিরোধিতা করেন। যারা মুদ্রাস্ফীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীদের সম্পর্কে মিথ্যা কথা বলে, তারা লোকনায়ক রাম এবং ভারতের জনগণকে অপমান করে।

এর আগে শুক্রবার, প্রিয়াঙ্কা গান্ধি মুদ্রাস্ফীতি এবং বেকারত্বের বিরুদ্ধে কংগ্রেসের প্রতিবাদে যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের দিকে মিছিল করে যাওয়ার সময়ে পুলিশ বাধা দিলে রাস্তায় ধর্নায় বসেছিলেন। কিছুক্ষণ পর তাঁকে হেফাজতে নেওয়া হয়। হেফাজতে নেওয়ার পর প্রিয়াঙ্কা গান্ধি অভিযোগ করেন, দেশের মানুষ মুদ্রাস্ফীতিতে ভুগছে, কিন্তু সরকারে বসে থাকা ব্যক্তিরা মুদ্রাস্ফীতি দেখছেন না।

এদিকে, আন্দোলনরত কংগ্রেসের পাশে না দাঁড়ানোয় এনসিপি, মমতাকে সমালোচনা করলেন শিবসেনা মুখপত্র ‘সামনা’-র নতুন সম্পাদক তথা শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে। এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) হাতে গ্রেফতার সঞ্জয় রাউত। তাঁর পরিবর্তে শিবসেনার মুখপত্র ‘সামনা’র সম্পাদক হয়েছেন সুপ্রিমো উদ্ধব ঠাকরে। ‘সামনা’-র সম্পাদকীয়তে বলা হয়েছে, বিরোধীদের মধ্যে ঐক্যের অভাব সুবিধা করে দিচ্ছে শাসক বিজেপিকে। মূল্যবৃদ্ধি ও বেকারত্বের প্রতিবাদে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য প্রশংসা করা হয়েছে রাহুল ও প্রিয়াঙ্কার। বলা হয়েছে যে রাহুল গান্ধি, সোনিয়া গান্ধিকে ইডি নিশানা করার পরেও দেশের মানুষের স্বার্থে রাহুল-প্রিয়াঙ্কা পথে নেমেছেন। তাঁদের আটক করার জন্যও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।’সামনা’-য় লেখা হয়েছে, ইডি আর সিবিআইকে ব্যবহার করে বিরোধীদের নিশানা করছে মোদী সরকার। এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেসের প্রতিবাদ মিছিলে বিরোধীদের সামিল না হওয়া গণতন্ত্রের পক্ষে ‘উদ্বেগজনক’। তৃণমূলের সমালোচনা করে লেখা হয়েছে, তুচ্ছ কারণে উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোট দিলেন না তৃণমূল সাংসদরা।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.