ঝালদা পুরসভায় নিহত তপন কান্দুর আসনে কংগ্রেস প্রার্থী তাঁরই ভাইপো মিঠুন

নিজস্ব সংবাদদাতা,পুরুলিয়া,২৮ মে:

নিহত কংগ্রেস কাউন্সিলর তপন কান্দুর ভাইপো মিঠুন কান্দুকে ঝালদা পুরসভার ২ নং ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে কংগ্রেসের প্রার্থী করা হল।গতকাল জেলা কংগ্রেস সভাপতি নেপাল মাহাত এই ঘোষণা করে বলেন,” তপন কান্দুকে খুন করা হল নিছক একটা পুরসভা দখল নেওয়ার জন্য।এ লজ্জা আমরা রাখব কোথায়?”

উল্লেখ্য গত ১৩ মার্চ ঝালদা পুরসভার নির্বাচনে কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেস সমান সংখ্যক অর্থাৎ প্রত্যেকে ৫ টি করে আসনে জয়লাভ করে।বাকি দুজন নির্দল কাউন্সিলর প্রাথমিকভাবে কংগ্রেসের সমর্থনে ছিল বলে জানা গেছে।কিন্তু তৃণমূল তাদের কতৃত্ব হারাবার আশঙ্কা করে আগে থেকেই তপন কান্দুকে তাদের দলে যোগ দেওয়ার জন্য স্থানীয় থানার আইসি মারফত ক্রমাগত চাপ সৃষ্টি করতে থাকে বলে অভিযোগ উঠে আসে।এ সম্পর্কিত একাধিক ভিডিও ক্লিপ ভাইরাল হয় যেখানে উক্ত আইসির পরিচয়ে একটা কন্ঠও শোনা গেছে। এমনকি তপন কান্দুকে উপপৌরপ্রধান করার প্রতিশ্রুতিও দিতে দেখা গেছে।কিন্তু ভয় দেখিয়ে,চাপ দিয়ে তাঁকে আয়ত্তে আনতে না পেরে তপনকে হত্যা করা হয় বলে অভিযোগ জানিয়েছিলেন স্বয়ং তপন কান্দুর স্ত্রী পূর্ণিমা কান্দু।এরপর সিট চারজনকে গ্রেপ্তার করে। এরই মধ্যে তপনের ঘনিষ্ঠ বন্ধু নিরঞ্জন বৈষ্ণব আত্মহত্যা করেন।নিরঞ্জনের লেখা সুইসাইড নোটে কারণ হিসাবে পুলিশী জেরার ফলে মানসিক চাপের উল্লেখ পাওয়া যায়। এরপর আদালতের নির্দেশে এই খুনের তদন্ত ভার সিবিআই এর হাতে যায়।

উল্লেখ্য যে তপন কান্দুর স্ত্রী পূর্ণিমা কান্দুও নির্বাচিত কাউন্সিলর।কংগ্রেস তাই তপন কান্দুর স্নেহভাজন ভইপো মিঠুনকেই প্রার্থী করল। মিঠুন জানিয়েছেন তাঁর কাকার অসম্পূর্ণ কাজ শেষ করার উদ্দেশেই তাঁর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত । পুরুলিয়া জেলা কংগ্রেসের সভাপতি নেপাল মাহাত জানিয়েছেন যে, সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েই নিহত তপনের আসনে মিঠুন কান্দুকে কংগ্রেসের প্রার্থী করা হয়েছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.