বিধাননগরে দ্রব্যমুল্য বৃদ্ধির বিরুদ্ধে কংগ্রেসের প্রতিবাদসভা

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলকাতা,২৮ মে:

আজ বিধাননগরে সিকে মার্কেটে বিধাননগর টাউন কংগ্রেসের উদ্যোগে সারা দেশে বেকার সমস্যা,পেট্রল ও ডিজেলের ক্রমাগত মুল্যবৃদ্ধি,দ্রব্যমুল্য বৃদ্ধি ইত্যাদির প্রতিবাদে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।টাউন কংগ্রেসের সভাপতি সিজার ঘটক বলেন কেন্দ্রীয় সরকার ক্রমাগত পেট্রোপন্যের দাম বাড়িয়ে তারপর কয়েক টাকা কমিয়েছে,আর দাবী করছে বিরাট কাজ করেছে।আসলে এই সরকার চায় না সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষেরা বেঁচে থাকুক। এআইসিসির সদস্য অমিতাভ সিংহ বলেন কংগ্রেস পরিচালিত ইউপিএ সরকারের আমলে ব্যারেলপ্রতি অপরিশোধিত তেলের দাম একবার প্রায় দেড়শ ডলার ছুঁয়েছিল।কিন্তু তখন তো মনমোহন সরকার তেলের দাম বাড়ায় নি।তখন পেট্রলের দাম ৭০টাকা লিটার ও ডিজেলের দাম ৫০ টাকার আশেপাশে ছিল।বর্তমান বিশ্ববাজারে রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধ সত্বেও অপরিশোধ তেলের দাম ব্যারেলপিছু ১১৪ ডলার।তাসত্বেও বর্তমান সরকার তেলের দাম বাড়িয়ে গেছে।এমনকি করোনার সময় যখন বিশ্ববাজারে তেলের দাম অত্যন্ত কমে গিয়েছিল তখন সরকার তেলের দাম না কমিয়ে কোটি কোটি টাকা তেল কোম্পানিগুলোকে লাভ করতে দিয়েছিল।তাছাড়া কংগ্রেস আমলে ডিজেলের ওপর উৎপাদন শুল্ক কম হওয়ায় গনপরিবহন যেমন বাস,ট্রাক ইত্যাদির ভাড়া গরীব ও মধ্যবিত্তদের আয়ত্বের মধ্যে ছিল।এই সরকার ডিজেলের ওপর উৎপাদন শুল্ক এতটাই বাড়িয়েছে যে গনপরিবহনের খরচ বেড়ে গেছে,ফলে সমস্ত নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বেড়ে গেছে।এমনিতেই কোভিদ পরবর্তীসময়ে ১৪ কোটি মানুষ কাজ হারিয়েছেন, ২ কোটি মানুষ নিয়মিত চাকুরী হারিয়েছেন।দারিদ্রসীমার নীচে চলে গেছেন কয়েক কোটি মানুষ।আর আরো ধনী হয়েছেন কিছু শিল্পপতি ও ব্যবসায়ীরা। আদানী অম্বানীদের সম্পদ বেড়েছে কয়েকগুণ। তাই আজ সাধারন মানুষকেও পথে নামতে হবে।তিনি বাংলার শিক্ষা জগতের অবস্থার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষন করে বলেন দুর্নীতির আধার এই সরকারের প্রতিটি তৃণমূল নেতা। কংগ্রেস আমলে দুর্নীতির অভিযোগে ওয়াং চু কমিশন বসানো হয়েছিল।

এই সভায় বক্তব্য রাখেন কিংশুক মজুমদার, মনিদীপা মন্ডল,সাগর দত্ত,মৃগাঙ্ক মল্লিক,পার্থ দাস।উপস্থিত ছিলেন কেষ্ট মুন্ডা,বিদ্যুৎ মাকাল প্রমুখ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.